আজও শিক্ষার্থীরা রাজপথে লাইসেন্স পরীক্ষা করছে

নিরাপদ সড়কের দাবিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে আজও  সপ্তম দিনের মতো রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় নেমেছে শিক্ষার্থীরা। তারা আজ সড়ক অবরোধ করেনি। তারা যানবাহনের কাগজপত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্সও দেখছে। আবার কোথাও কোথাও রাস্তায় যানবাহন যাতে সুশৃঙ্খলভাবে চলাচল করে তারা সে বিষয়ে সহায়তা করছে।

উত্তরায় সড়কের পাশে অবস্থান নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। সেখানে পর্যাপ্ত সংখ্যাক পুলিশ সদস্যও মোতায়েন রয়েছে। হাউজ ব্রিল্ডিং মোড় দখলে নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তারা পুলিশের বেরিকেড উপেক্ষা করে রাস্তায় অবস্থান নেয় সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে। হাউজ ব্রিল্ডিংয় এলাকায় শিক্ষার্থীরা গাড়ির কাগজপত্র ও ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করছে।

মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে আজও শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের দাবিতে অবস্থান নিয়েছে। সকাল ১০টার পর তারা গোলচত্বরে হারুন মোল্লা ট্রাফিক কন্ট্রোল বক্সের সামনে অবস্থান নেয়।

সায়েন্সল্যাবে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমেছে, তবে রাস্তা অবরোধ করেনি। সারিবদ্ধভাবে যান চলাচলে সহায়তা করছে তারা। ফার্মগেট এলাকায়ও শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচি শুরু করেছে। আজ সকাল ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থীরা শান্তিনগর মোড়ে জড়ো হয়।একই সময় বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা ঝিগাতলা মোড়ে এসে জড়ো হয়। মালিবাগে আবুল হোটেলের সামনে অবস্থান নেয় একদল শিক্ষার্থী।

এদিকে রাজধানীর শাহবাগে অবস্থান নেয়া শিক্ষার্থীরা এক বিদেশি নাগরিকের গাড়ি থামাতে বললে চালক গাড়ি না থামিয়ে বেপরোয়াভাবে সামনের দিকে চলতে থাকে। পরে শিক্ষার্থীরা পেছন ধাওয়া করে গাড়িটিকে আটকে ফেলে। এরপরে শিক্ষার্থীরা শাহবাগ থানায় গাড়িটিকে চালকসহ নিয়ে যায়।শিক্ষার্থীদের দাবি, এ বিদেশি নাগরিকের বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে যে কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারত।

২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহন লিমিটেডের একটি বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। ওই ঘটনার প্রতিবাদে সেদিন থেকেই শিক্ষার্থীরা রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নেয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *