আদর্শ বন্ধু আর জীবন সঙ্গী জীবনে পরিপূরক

আদর্শ বন্ধু আর জীবন সঙ্গী আমাদের চোখে যেন একই অর্থ বহন করে। কিন্তু আপনার আত্মার আত্মীয়, কাছের মানুষ মানেই সে আপনার সারা জীবনের সঙ্গী, তা কিন্তু নয়। আমাদের সবার জীবনেই এমন বন্ধু আসে যে আমাদের জীবনের নতুন মানে শেখায়, সমৃদ্ধ করে, সামনে এগিয়ে নিয়ে যায়। আর একজন জীবন সঙ্গী আমাদের হাত ধরে রাখে সারা জীবন। তার উপর আমরা বিশ্বাস করি, ভরসা করি। আপাত অর্থে এক মনে হলেও বিষয় দু’টিতে আছে বিস্তর পার্থক্য।


একজন আদর্শ বন্ধু জীবনমুখী শিক্ষা দেয় ।এই মানুষটি যে কেউ হতে পারেন। তিনি হয়ত আপনার বাবা, হয়ত মা, শিক্ষক, কোন বন্ধু অথবা প্রেমিক/প্রেমিকা। তিনি আপনার জীবনকে একটি অর্থ প্রদান করে। বদলে দেয় জীবনের মানে। একটা ভিন্ন আলোকিত দৃষ্টিভঙ্গী দান করে সেই বিশেষ মানুষটি। এরপর তিনি পাশে না থাকলেও তার দেখানো পথ আপনাকে এগিয়ে নিয়ে যায়। কখনো সচেতনভাবে আবার কখনো অবচেতন মনে আপনি তার দ্বারা প্রভাবিত জীবনযাপনই বেছে নেন।
অপরদিকে, জীবনসঙ্গী হয় সেই মানুষটি যার সাথে মিলে যায় আপনার রুচি, পছন্দ। তিনি আপনার শিক্ষক নন। তিনি আপনারই সমকক্ষ একজন মানুষ, পথ চলার সঙ্গী। তার সাথে আপনার ইগোর দ্বন্ধ হতে পারে, একসাথে থাকার জন্য অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হওয়াও হতে পারে। আপনি তার ভক্ত নন, তার সঙ্গী। ঘনিষ্ঠতা আদর্শ বন্ধুটি আপনার অনেক ঘনিষ্ঠ। আপনার স্বপ্নের সাথে জড়িয়ে গেছেন তিনি। কিন্তু তার সাথেও থাকতে পারে সম্পর্কের উত্থান-পতন। কারণ আপনাকে গড়ে তুলতে তাকে কখনো হতে হয় খুব কড়া আবার কখনো খুব সহনশীল।


কিন্তু জীবনসঙ্গী আপনার জীবনে এমন একটা সময়ে আসেন যখন তার নিজের জীবনের একটি স্পষ্ট ভিত্তি দাঁড়িয়ে গেছে। নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে গেছেন আপনিও। পথ দেখাবার বা দিক নির্দেশনা দেওয়ার কিছু নেই। আপনারা দুজনেই নিজেকে চেনেন, ভালবাসেন, শ্রদ্ধা করেন। এই ঘনিষ্ঠতাটা হয় ভিন্ন স্বাদের। একজন আদর্শ বন্ধুর কাজ হল আপনাকে নাড়িয়ে দেওয়া, আপনাকে অহমমুক্ত করা, পথের বাঁধা এবং ভয় গুলোকে সামনে তুলে ধরা, আপনার মনের দরজাকে ভাঙা যাতে নতুন আলো ভেতরে প্রবেশ করতে পারে, আপনাকে সাহসী করা একইসাথে বাঁধাহীন করা যাতে আপনি নিজেই নিজের পরিবর্তন করতে পারেন।’ – বলেছেন এলিজাবেথ গিলবার্ট।


আকর্ষণ যা হার মানায় অন্য সবকিছুকে আদর্শ বন্ধুটি যেন আপনার অনেক দিনের চেনা। জীবনের যে পর্যায়েই তার সাথে আপনার দেখা হোক না কেন আপনি তাকে দেন সর্বোচ্চ স্থান। আপনি তাকে অনুসরণ করতে শুরু করেন। এ আকর্ষণ ভিন্ন কিছু। এর সাথে তুলনা হয় না অন্য কোন কিছুর।


জীবনসঙ্গী আসে সম্পূর্ণ ভিন্ন পথে। তাকে নির্বাচনের সময় আমরা অনেক সাত-পাঁচ ভাবি। অনেক হিসেব নিকেশ করি। তার পরিবার, বেড়ে ওঠার পরিবেশ পর্যন্ত আমাদের বিবেচনায় থাকে। মানসিক ঘনিষ্ঠতার চেয়েও বেশী থাকে বৈষয়িক চিন্তা, মানিয়ে চলার ভাবনা। পরিশেষে, আপনার জীবনে পরিবর্তনের সময়টা কখন আসে তা আসলে আগে থেকে নির্ধারিত হওয়া সম্ভব নয়। আপনার আদর্শ বন্ধুটিই হতে পারে আপনার জীবন সঙ্গী। আবার এমনও হতে পারে, যাকে আপনি নিজের আদর্শ হিসেবে বেছে নিলেন তিনি কোন উপন্যাসের চরিত্র, বাস্তব চরিত্রই নন। তবে জীবনে এই মানুষের ভূমিকা থাকে অতুলনীয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: