পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে শ্রীদেবীকে!

দুবাইয়ের হোটেলে কিংবদন্তি নায়িকা শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলেছেন দিল্লি পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত এসিপি বেদ ভূষণ। তিনি দাবি করেছেন, শ্রীদেবীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বেদ ভূষণ জানান, কাউকে চাইলেই তো জোর করে বাথটাবে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া যায়। পানিতে ডুবিয়ে রেখে তার নিঃশ্বাস বন্ধ করে তাকে হত্যা করা সম্ভব। এতে করে কোনো প্রমাণ ছাড়াই একজন মানুষকে মেরে ফেলা যায়। শ্রীদেবীকেও পরিকল্পনা করেই হত্যা করা হয়েছে।

দুবাই পুলিশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন নিয়ে বেদ জানান, দুবাইয়ের আইন ব্যবস্থার প্রতি আমাদের সম্মান রয়েছে। কিন্তু তারা শ্রীদেবীর ময়নাতদন্তের যে প্রতিবেদনটি জমা দিয়েছেন সেটি নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। ঠিক কী হয়েছিল তার সঙ্গে আমরা সেটি জানতে চাই। এখনও অনেক প্রশ্নের উত্তর পাওয়া বাকি রয়েছে। আমরা দুবাই যাব এবং সবকিছু পুনরায় তদন্ত করব।

বেদ ভূষণ আরও জানিয়েছেন, শ্রীদেবীর মৃত্যুর তদন্ত করার জন্য তিনি দুবাইয়ের জুমেইরাহ এমিরেটস টাওয়ার্সে গিয়েছিলেন। কিন্তু হোটেলের ওই ঘরে তাকে ঢুকতে দেয়া হয়নি। তাই তিনি পাশের ঘর থেকে সম্পূর্ণ ঘটনাটি বোঝার চেষ্টা করেছেন এবং সিদ্ধান্তে এসেছেন যে, শ্রীদেবীর মৃত্যু পরিকল্পিত।

এর আগে, শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন আইনজীবী সুনীল সিংহও। তিনি বলেছিলেন, ৫ ফুট ৭ ইঞ্চির একজন মানুষ কি করে ৫ ফুট ১ ইঞ্চি লম্বা বাথটাবে ডুবে যাবেন?

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের একটি হোটেলের বাথটাবে ডুবে মারা যান ভারতের কিংবদন্তি নায়িকা শ্রীদেবী। মাত্র ৫৪ বছর বয়সেই বলিউডের প্রথম নারী সুপাস্টারের জীবনপ্রদীপ নিভে যায়।

প্রথমে জানা গিয়েছিল, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হোটেলের বাথটাবের পানিতে ডুবে মারা যান শ্রীদেবী। পরে দুবাই পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিলো, হৃদরোগে নয় দুর্ঘটনাবশত বাথটাবের পানিতে ডুবে মৃত্যু হয় ‘ইংলিশ ভিংলিশ’ খ্যাত এই তারকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: