বাংলাদেশের সঙ্গে সিরিজ বাতিল করল অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে চলতি বছরের শেষের দিকে বাংলাদেশের একটি টেস্ট সিরিজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া সিরিজটি বাতিল করেছে। সিরিজ আয়োজনের জন্য তাদের আর্থিক সংকটের কথা উল্লেখ করে সিরিজটি বাতিল করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে দেশটি।

চলতি বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দুটি টেস্ট এবং তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানিয়েছে যে, সিরিজটি আর্থিক দিক দিয়ে তাদের জন্য খুব একটা উপযোগি না।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ভারত দিবা রাতির টেস্ট খেলবে না বলে জানিয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহি জেমস সাদারল্যান্ড জানিয়েছেন, সিরিজটা নির্ধারিত সময়ের সঙ্গে খাপ খাচ্ছে না। তিনি বলেন, ‘আসলে এটা নির্ভর করে স্বাগতিক দল কতগুলো সিরিজ খেলবে এবং কাদের সঙ্গে কখন সিরিজ খেলবে তার উপরে।’

অস্ট্রেলিয়ায় আগস্ট-সেপ্টেম্বরে ফুটবলের মৌসুম চলবে। এসময় ক্রিকেট সিরিজ আয়োজন করলে তা দর্শক টানবে না বলে মনে করছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। তাছাড়া টেলিভিশনগুলো এসময় সম্প্রচার শর্ত নিতে রাজি হবে না। তবে বিসিবির প্রধান নির্বাহি নিজাম উদ্দিন চৌধুরি ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের পরে অস্ট্রেলিয়া গিয়ে টেস্ট সিরিজ খেলার ব্যাপারে চিঠি দিয়েছেন। এখন দেখার বিষয় ওই চিঠির কোন সাড়া অস্ট্রেলিয়া দেয় কিনা।

এরআগে বাংলাদেশ ২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেছে। এরপর নিয়ম অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশে এসে সিরিজ খেলার কথা ছিল। প্রথমে ওয়ানডে এবং গত বছর টেস্ট সিরিজ খেলে সেই পাওনা সিরিজ শোধ করেছে অস্ট্রেলিয়া। এরপর বাংলাদেশকে স্বাগত জানানোর কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তাও বাতিল হয়ে গেল।

তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহি সাদারল্যান্ড মনে করেন, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হয়ে গেলে টেস্ট খেলুড়ে সেরা নয় দেশ নিয়ম অনুযায়ী মুখোমুখি হবে। তখন একে অপরের বিপক্ষে দেশে এবং দেশের বাইরে সিরিজ খেলবে দেশগুলো। তখন টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার সূচি বাতিলের সুযোগ কম থাকবে। তাছাড়া শক্তিশালী দল নিয়েই টেস্টে মুখোমুখি হবে প্রত্যেক দল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *