মুখ খুললেন ‘ভিলেন’ রামোস

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে ইনজুরিতে পড়েন মোহাম্মদ সালাহ। আর সেই ইনজুরির পেছনে ভিলেনের ভূমিকায় আছেন সার্জিও রামোস। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় যে রামোসের কুনুইর ধাক্কায় অভিঘাতে ভোগেন লিভারপুলের গোলরক্ষক লরিস কারিয়াস। সে কারণেই মারাত্মক দুটি ভুল করেন কারিয়াস। এখানেও আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয় রামোসকে।

সালাহর ঘটনার পর থেকে সবার শত্রুতে পরিণত হয়েছেন রামোস। লিভারপুল ও মিশরের সমর্থকদের হুমকি ও জ্বালাতন সহ্য করতে না পেরে স্বপরিবারে মুঠোফোন নম্বর পরিবর্তন করেছেন। এখনো তাকে শুনতে হচ্ছে তিনি দোষী। অবশেষে স্প্যানিশ ক্রীড়া পত্রিকা মার্কার কাছে মুখ খুলেছেন স্প্যানিশ এই ফুটবলার। তিনি জানিয়েছেন যখন রামোস কিছু করে তখন সেটাকে বড় করে দেখানো হয়। পাশাপাশি তিনি সালাহ ও কারিয়াসের ঘটনায় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন।

রামোস বলেন, ‘আসলে তারা সালাহর ইস্যুকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। এই বিষয়ে আমি কথা বলতে চাই না। কারণ আমি কিছু বললেই সেটাকে বাড়িয়ে পরিবেশন করা হবে। আপনারা যদি খেলা দেখে থাকেন তাহলে দেখবেন যে সালাহই প্রথম আমাকে ধরেছে। আমি উল্টো দিকে পরে গিয়েছি। আমি তার যে হাত ধরেছিলাম সেটাতে কিন্তু ইনজুরি হয়নি। সে কিন্তু ব্যথা পেয়েছে তার অপর হাতে। তারপরও সবাই বলছে আমি সালাহর সঙ্গে কুস্তি খেলেছি।’

কারিয়াসকে ধাক্কা দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘খেলা শেষ হওয়ার দুই সপ্তাহের মাথায় কারিয়াস বলছে আমার ধাক্কাতেই নাকি সে অভিঘাতে ভুগেছে। আসলে এখন বাকি কেবল রবার্তো ফিরমিনো। সে এসে বলুক যে আমার শরীরের এক বিন্দু ঘাম তার গায়ে পড়ায় সে ঠা-া-জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে। ফ্লুতে আক্রান্ত হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *